jagannathpurpotrika-latest news

আজ, , ১৮ই রমযান, ১৪৪০ হিজরী

সংবাদ শিরোনাম :
«» ১৮ জুন জামালগঞ্জ উপজেলা পরিষদ নির্বাচন «» ওসমানীনগরে তালামীযের ইফতার মাহফিল ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত «» সামাজিক সংগঠন ইয়ূথ-স্টাফ সিলেটের ইফতার মাহফিল অনুষ্ঠিত «» বিশ্বনাথে দিনমজুর পরিবারের উপর হামলা, আহত ৩ «» বিশ্বনাথে আ’লীগের ইফতার মাহফিলে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা’র নেতৃত্বেই দেশ হয়েছে ক্ষুধা-দারিদ্র, জঙ্গি-সন্ত্রাসবাদ ও মাদকমুক্ত- শফিক চৌধুরী «» জগন্নাথপুরে তালামীযের অভিষেক ও ইফতার মাহফিল অনুষ্ঠিত «» ছাত্র মজলিস প্রচলিত কোন সংগঠনের নাম নয় বরং একটি আদর্শিক শিক্ষা প্রতিষ্ঠান- সাইফুর রহমান খোকন «» ইফতার মাহফিলে বিভিন্ন শ্রেণী-পেশার মানুষের মিলনমেলা : ঐতিহ্যবাহী বিশ্বনাথ প্রেসক্লাবের কর্মকান্ড সর্বমহলে প্রসংশিত- শফিকুর রহমান চৌধুরী «» নিরাপত্তা চেয়ে বিশ্বনাথের যুবকের আদালতে মামলা «» জ্যৈষ্ঠ মাসে নাইওরি আসে




খেলাফত মজলিসকে খুলনা-৪ আসনে মনোনয়ন না দিলে খুলনা বিভাগের ৩৭ টি অাসনে কাজ করবে না দলের নেতা কর্মীরা

ইয়াকুব মিয়া :: একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে খুলনা-৪ (রূপসা-তেরখাদা-দিঘলিয়া) আসনে সংসদ সদস্য হিসেবে খেলাফত মজলিসের মনোনয়ন পেয়েছেন খেলাফত মজলিসের নায়েবে আমীর, ২০ দলীয় জোটের অন্যতম শীর্ষ নেতা, খুলনার কৃতী সন্তান বিশিষ্ট ইসলামী চিন্তাবিদ মাওলানা সাখাওয়াত হোসাইন।

 

তিনি নির্বাচনী মাঠে দীর্ঘদিন ধরেই সক্রিয় রয়েছেন এবং গন সংযোগ করছেন। তিনি আগামী একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে খুলনা-৪ আসন থেকে ২০ দলীয় জোটের মনোনয়ন প্রত্যাশী। রূপসা, তেরখাদা, দিঘলিয়া উপজেলা নিয়ে গঠিত আসনে তাঁর জনপ্রিয়তা রয়েছে। তিনি ১৯৯১,১৯৯৬ সালে জাতীয় নির্বাচনে নিজ দলের প্রার্থী হয়ে অংশ গ্রহন করেন এবং সন্মানজনক ভোট পান, তিনি নির্বাচন করার কারনে নির্বাচিত হন আওয়ামীলীগ মনোনীত প্রার্থী। ২০০১ সালে ৪ দলীয় জোটের হয়ে নির্বাচন করেন বিএনপি প্রার্থী এবং বিজয়ী হন। ২০০৮ সালে জোটের হয়ে নির্বাচন করেন বিএনপি প্রার্থী এবং আওয়ামীলীগের সাবেক ইউনিয়ন চেয়ারম্যানের কাছে পরাজিত হন। এলাকার নেতা কর্মী ও ভোটারদের দাবী এবারের একাদশ জাতীয় নির্বাচনে আসন পুনঃউদ্ধার করতে হলে এলাকার সন্তান মাওলানা সাখাওয়াত হোসাইনের বিকল্প নেই। এলাকায় তাঁর ব্যাপক পরিচিতি ও জনপ্রিয়তা রয়েছে । ২০০১ সালে চারদল গঠন হওয়ার পর থেকে এই আসনে মনোনয়নের জন্য জোর দাবী করে আসছে খেলাফত মজলিস। বর্তমানে এই আসনে বিএনপির প্রার্থী দুইজন, তারা কেউ কাউকে ছাড় দিতে নারাজ। বিএনপির দু’জন প্রার্থী হবার কারনে এলাকায় নেতা কর্মীরা ও দু’ভাগে বিভক্ত হয়ে পড়েছে। সম্প্রতি বিএনপির তৃণমূল নেতা কর্মী ও ভোটারদের মধ্য থেকে দাবী উঠেছে বিএনপির দুইজন প্রার্থীর বিপরীতে জোটের অন্যকাউকে প্রার্থী করা। সেই হিসেবে জোটের অন্যতম শরীক খেলাফত মজলিসের মাওলানা সাখাওয়াত হোসাইন কে মনোনয়ন দিলে একদিকে বিএনপির দলীয় কোন্দল মিটবে অন্যদিকে শরীকদল খেলাফত মজলিস মূল্যায়িত হবে এবং কাঙ্খিত সফলতা অর্জন করা সম্ভব হবে। মাওলানা সাখাওয়াত হোসাইনের নির্বাচনী এলাকায় বেশ। সুনাম, সুখ্যাতি ও দলীয় ভোটব্যাংক রয়েছে। তিনি এই আসনে ২০ দলীয় জোটের হেভিওয়েট প্রার্থী। তাঁর বড় সন্তান খেলাফত মজলিসের জেলা সাধারণ সম্পাদক হাঃমাওঃআব্দুল্লাহ যোবায়ের রূপসা উপজেলা পরিষদের ভাইস-চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছেন। দলীয় সূত্রে জানা গেছে আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনে প্রার্থীতার জন্য খেলাফত মজলিসের পক্ষ থেকে খুলনা বিভাগের ৩৭ টি আসনের মধ্যে, খুলনা-৪ আসনে, মাওঃ সাখাওয়াত হোসাইনের একটি মনোনয়ন দাবী ২০ দলীয় জোটের কাছে। বিষয়টি ইতি মধ্যে জোটের শীর্ষ নেতাদের অবহিত করা হয়েছে। এবারের একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে খুলনা-৪ আসন দলের নায়েবে আমীর মাওলানা সাখাওয়াত হোসাইন কে ছেড়ে না দিলে খুলনা বিভাগের কোন আসনে কাজ করবে না জানিয়েছে খেলাফত মজলিসের নেতাকর্মীরা।

 

খেলাফত মজলিস খুলনা বিভাগের নেতা-কর্মীরা গণমাধ্যমকে জানান, খুলনা-৪ আসনে খেলাফত মজলিসের নায়েবে অামীর ২০ দলীয় জোটের শীর্ষ নেতা বিশিষ্ট অালেমেদ্বীন নির্বাচনী এলাকার সর্ব শ্রেণী-পেশার মানুষের শ্রদ্ধেয় ব্যাক্তিত্ব ও দেশের বিজ্ঞ অালেম সমাজের পক্ষথেকে জোটের শীর্ষ নেতৃবৃন্দের কাছে বার বার দাবি উঠেছে খুলনা-৪ আসনে মাওলানা সাখাওয়াত হোসাইনকে জোটের মনোনয়ন দেওয়ার জন্য।

 

বিএনপির নেতৃত্বাধীন ২০ দলীয় জোটে যদি এবার মনোনয়ন না দেন তাহলে খুলনা বিভাগের ৩৭ টি অাসনে অালেম উলামা, খেলাফত মজলিস সহ বেশ কয়েটি রাজনৈতিক দলের নেতা-কর্মীরা জোটের কোন প্রার্থীর পক্ষে কাজ করবে না বলে জানান তারা।

 

খুলনা বিভাগের শীর্ষ অালেম সমাজ ও কওমি অঙ্গনের রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দের একাধিক বৈঠকে তাদের দাবি খুলনা-৪ আসনে জোটের প্রার্থী হিসেবে মাওলানা সাখাওয়াত হোসাইনকে চাই। তাদের দাবি যদি না মানা হয় তাহলে বিভাগের ৩৭টি অাসনে জোটের প্রার্থীকে অামরা ভোট দেওয়া বয়কট করার কথাও বলেন।এ আসনে নির্বাচনের ব্যাপারে অনড় অবস্থানে রয়েছেন খেলাফত মজলিস, আশা করছে জোটের স্বার্থে এ আসনটি তাদের দেওয়া হবে।

এখানে ক্লিক করে শেয়ার করুণ