jagannathpurpotrika-latest news

আজ, , ১৮ই রমযান, ১৪৪০ হিজরী

সংবাদ শিরোনাম :
«» ১৮ জুন জামালগঞ্জ উপজেলা পরিষদ নির্বাচন «» ওসমানীনগরে তালামীযের ইফতার মাহফিল ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত «» সামাজিক সংগঠন ইয়ূথ-স্টাফ সিলেটের ইফতার মাহফিল অনুষ্ঠিত «» বিশ্বনাথে দিনমজুর পরিবারের উপর হামলা, আহত ৩ «» বিশ্বনাথে আ’লীগের ইফতার মাহফিলে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা’র নেতৃত্বেই দেশ হয়েছে ক্ষুধা-দারিদ্র, জঙ্গি-সন্ত্রাসবাদ ও মাদকমুক্ত- শফিক চৌধুরী «» জগন্নাথপুরে তালামীযের অভিষেক ও ইফতার মাহফিল অনুষ্ঠিত «» ছাত্র মজলিস প্রচলিত কোন সংগঠনের নাম নয় বরং একটি আদর্শিক শিক্ষা প্রতিষ্ঠান- সাইফুর রহমান খোকন «» ইফতার মাহফিলে বিভিন্ন শ্রেণী-পেশার মানুষের মিলনমেলা : ঐতিহ্যবাহী বিশ্বনাথ প্রেসক্লাবের কর্মকান্ড সর্বমহলে প্রসংশিত- শফিকুর রহমান চৌধুরী «» নিরাপত্তা চেয়ে বিশ্বনাথের যুবকের আদালতে মামলা «» জ্যৈষ্ঠ মাসে নাইওরি আসে




বিশ্বনাথ স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেই ডাক্তার চিকিৎসা না পেয়ে বাড়ি ফিরলেই অনেক রোগী

বিশ্বনাথ প্রতিনিধি :: ছোট শিশু এক্সিডেন্ট করেছে। সাথে সাথে নিয়ে আসা হয়েছে হাসপাতালে। কিন্তু কোন ডাক্তার নেই। আছে শুধু একজন নার্স। নার্সের কাছেও নেই কোন ডাক্তারের নাম্বার। এভাবেই চলছে বিশ্বনাথ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের কার্যক্রম। বুধবার অনেক রোগী এসেছিলেন বিশ্বনাথ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে। বিভিন্ন রোগের চিকিৎসা নিতে এসে রোগীরা পাননি ডাক্তারের দেখা। উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তাসহ অন্যান্য ডাক্তারেরা নেই কর্মস্থলে। এছাড়া হাসপাতালে পরিস্কার পরিচ্ছন্ন থাকার কথা থাকলেও দেখা যায় অপরিস্কার। সরকার পরিস্কার রাখার জন্য বরাদ্ধ দিলেও সেই টাকা যায় কোথাও জাতী জানতে চায়?
এ ব্যাপারে হাসপাতালে আসা আমতৈল গ্রামের শাহানা বেগম বলেন, ৭ দিন ধরে আমি হাসপাতালে আছি। আমাদেরকে প্রতিদিন সামান্য জুল দিয়ে খাবার দেয়া হয়। আমরা সবজি কিংবা মাছ চাইলে আমাদেরকে ধমক দেন তারা। তিনি বলেন, হাসপাতালে ভর্তি হয়েছি ৭দিন হয়েছে কিন্তু আজ পর্যন্ত বিছানা পরিবর্তন করা হয়নি।

 

শ্রীপুর গ্রামের পিয়ারা বেগম বলেন, আজ বুধবার সারাদিনের মধ্যে একবারও ডাক্তার আসেননি। হাসপাতালে সেবা নিতে এসে আমরা মহাবিপদে আছে।

 

পশ্চিম ধলিপাড়া গ্রামের সখিনা বেগম বলেন, বাইরে থেকে নিজের টাকা দিয়ে সিরিঞ্জ কিনে দিতে হয় ডাক্তারের কাছে। আর কোন ঔষধ চাইতে আমাদের ধমক শুনতে হয়। এভাবেই আমরা আছি।

 

পুরানগাঁও গ্রামের হতদরিদ্র আফিজ আলী বলেন, আমার ছেলের শ্বাসকষ্ট রোগ। হাসপাতালে নিয়ে আসলে কোন সুচিকিৎসা পাচ্ছিনা। ডাক্তারের দেখা ও পাচ্ছিনা। কি যে করি এখন আমি, আমার শিশুকে নিয়ে ভেবে পাচ্ছিনা।

 

ভোক্তভোগী অনেকেই বলেছেন, হাসপাতালে এসে ডাক্তার না পেয়ে আমরা চলে গেলাম। তারা দু:খ করে বলেন, আমাদের সরকার অনেক টাকা খরছ করে ভবন নির্মাণ করে। বিনামূলে আমাদের ঔষধ দেয়। কিন্তু হাসপাতালে এসে আমরা কোন চিকিৎসা পাই না, পাইনি ডাক্তারের দেখা। প্রায় সময়ই আমাদের হাসপাতালে ডাক্তার থাকেনা বলেও তারা অভিযোগ করেন।

 

কর্ত্বব্যরত নার্স লাকী আরা বলেন, কোন ডাক্তারের মোবাইল নাম্বার আমার কাছে নেই আমি শুধু রোগী নাম টিকানা লিখে রাখি।

 

এ ব্যাপারে উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডাক্তার আব্দুর রহমান বলেন, হাসপাতালে ডাক্তার থাকার কথা। কিন্তু কেন নেই তা আমি দেখছি।

এখানে ক্লিক করে শেয়ার করুণ