jagannathpurpotrika-latest news

আজ, , ১৭ই জিলক্বদ, ১৪৪০ হিজরী

সংবাদ শিরোনাম :
«» বিশ্বনাথে জুয়ার আস্তানায় পুলিশের অভিযান, আটক ১ «» হবিগঞ্জে ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে হামলা, অর্থ লুট «» সিলেটে ইয়াবার চালানসহ অাটক ৩ «» বিশ্বনাথে সাজাপ্রাপ্ত আসামী গ্রেপ্তার «» দেশবাসী শুনে রাখেন মিন্নির কিছু হলে আমি আত্মহত্যা করমু «» সুনামগঞ্জে আইনজীবীর বাসায় দুর্ধর্ষ চুরি «» আল্লামা শায়খ যিয়া উদ্দিনের বর্ণাঢ্য জীবন ও কর্ম নিয়ে লিখিত জীবনী স্মারকের মোড়ক উন্মোচন ৮ আগস্ট «» রাজনৈতিক সংকট এখন রাজনৈতিক শূন্যতায় পরিনত হয়েছে- মাওলানা ইসহাক «» বিশ্বনাথে এইচএসসিতে দুই বোনের জিপিএ-৫ লাভ «» দক্ষিণ সুনামগঞ্জে শতাধিক পরিবারে আল হান্নান ইসলামী সমাজ কল্যাণ সংস্থার ত্রাণ বিতরন




সিলেটে বাদ পড়ার শঙ্কায় বিএনপির দেড় শতাধিক নেতা!

নিজস্ব প্রতিবেদক :: গঠনতন্ত্র অনুযায়ী বিএনপির জেলা কমিটির পরিধি হওয়ার কথা ১৫১ জনের। কিন্তু সিলেট জেলা বিএনপির কার্যক্রম চলছে ২৮৫ সদস্য দিয়ে। ঢাউস এই কমিটির কথা শুনে বিস্মিত বিএনপির ভারপ্রাপ্ত ভাইস চেয়ারম্যান তারেক রহমান। গঠনতন্ত্র উপেক্ষা করে বৃহৎ এই কমিটি গঠনের ব্যাখা চেয়েছিলেন তারেক। দলের নেতারা নিজেদের মতো জবাবও দিয়েছেন। কিন্তু তাতে খুব একটা সন্তুষ্ট হননি দলের ভারপ্রাপ্ত প্রধান। নির্দেশ দিয়েছেন দ্রুততম সময়ের মধ্যে জেলা বিএনপি পুনর্গঠনের। গঠনতন্ত্রের নির্দেশনার বাইরে একজন সদস্যও যেন না রাখা হয় তা সাফ জানিয়ে দিয়েছেন তিনি।

গত ৮ এপ্রিল ঢাকায় সিলেট জেলা বিএনপির নেতাদের সাথে বৈঠক করেন তারেক রহমান। স্কাইপের মাধ্যমে বৈঠকে যোগ দিয়ে এমন নির্দেশনা দেন তারেক রহমান।

জানা গেছে, তারেকের নির্দেশনা পেয়েই দল পুনর্গঠনের কাজ শুরু করে দিয়েছেন জেলা বিএনপির শীর্ষ নেতারা। আগামীতে কমিটির পরিসর ছোট হওয়ার ইঙ্গিত পেয়ে বর্তমান কমিটির প্রায় দেড় শতাধিক নেতা এখন আছেন পদ-পদবী হারানোর শঙ্কায়।

বিএনপি সূত্রে জানা গেছে, সিলেটের সাংগঠনিক সর্বশেষ অবস্থা জানতে গত ৮ এপ্রিল ঢাকায় সিলেট জেলা বিএনপির শীর্ষ ৯ নেতাকে তলব করেন দলের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান। যুক্তরাজ্যে অবস্থানরত তারেক সিলেটের নেতাদের সাথে কথা বলেন স্কাইপে। প্রায় দুই ঘন্টার ওই বৈঠকে জেলা, উপজেলা ও পৌর কমিটির তথ্য নেন তারেক। ১৫১ সদস্যের স্থলে ২৮৫ সদস্যের জেলা কমিটির কথা শুনে বিস্ময় প্রকাশ করেন তিনি। গঠনতন্ত্র উপেক্ষা করে কমিটি গঠনের কারণও জানতে চান তারেক। তখন বিএনপি নেতারা জানান, ১৪ বছর ধরে পূর্ণাঙ্গ কমিটি না হওয়ায় অনেকেই পদ-পদবী বঞ্চিত ছিলেন। তাদেরকে মূল্যায়ন করতেই ২০১৭ সালের ২৬ এপ্রিল এই কমিটি গঠন করা হয়েছিল। বিএনপি চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়ার সম্মতিতেই বৃহৎ এই কমিটি গঠনের কথা জানান জেলার নেতারা।

সিলেটের নেতাদের বক্তব্য শুনে সিলেটে দলকে তৃণমূল পর্যায় থেকে ঢেলে সাজানোর নির্দেশ দেন তারেক রহমান। জেলা বিএনপির কার্যনির্বাহী কমিটির সভা ডেকে ওয়ার্ড পর্যায় থেকে কিভাবে গণতান্ত্রিক পদ্ধতিতে নতুন কমিটি গঠন করা যায় তার কর্মকৌশল নির্ধারণ করে আগামী ১৫ মের মধ্যে তা কেন্দ্রে জমা দেয়ার নির্দেশও দেন তিনি। কর্মকৌশল জমা দেয়ার পর তার সাথে আলোচনা করতেও জেলার নেতাদের নির্দেশ দেন তারেক। একইসাথে আগামীতে কোন পর্যায়ের কমিটিতে দলের দুঃসময়ে রহস্যজনক ভূমিকা পালনকারী ও দীর্ঘদিন ধরে নিষ্ক্রিয়দের স্থান না দেয়ার নির্দেশ দেন তিনি। আগামীতে কমিটিতে ত্যাগীদের মূল্যায়নের পাশাপাশি যারা এলাকায় থাকেন না তাদেরকে বাদ দিতে হবে- এমন সিদ্ধান্তই জানিয়ে দেন তারেক।

সূত্র জানিয়েছে, শুধু বিএনপি নয়, দলের ৯টি অঙ্গ ও ২টি সহযোগী সংগঠনকেও ঢেলে সাজানোর উদ্যোগ নিতে বিএনপি নেতাদের নির্দেশ দেয়া হয় ওই বৈঠকে। কোন অঙ্গ, সহযোগী সংগঠনের সাংগঠনিক অবস্থা কেমন তা আগামী ৩০ এপ্রিলের মধ্যে তার কাছে পাঠাতে বলেন তারেক।

তারেক রহমানের নির্দেশনা বাস্তবায়নে ইতোমধ্যে কাজ শুরু হয়েছে বলে সিলেটভিউ২৪ডটকমকে জানিয়েছেন সিলেট জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক আলী আহমদ।

আলী আহমদ জানান, সাংগঠনিক অবস্থা জানাতে একটি ফরম্যাট তৈরি করে তা অঙ্গ সহযোগী সংগঠনের নেতাদের কাছে পাঠানো হয়ে গেছে। নির্দেশনা অনুযায়ী ৩০ এপ্রিলের মধ্যে তা ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের কাছে পাঠানো হবে।

তিনি আরও জানান, রমজান মাস শুরুর আগেই জেলা বিএনপির কার্যনির্বাহী পরিষদের সভা আহ্বান করা হচ্ছে। ওই সভায় সিদ্ধান্ত নিয়েই ওয়ার্ড পর্যায় থেকে নতুন কমিটি গঠন শুরু হবে। পর্যায়ক্রমে দ্রুততম সময়ের মধ্যে জেলার আওতাধীন ১৩টি উপজেলা ও ৪টি পৌর কমিটি গঠন করা হবে।

এখন থেকে কোন কমিটিই গঠনতন্ত্রে উল্লেখিত সংখ্যার চেয়ে বেশি হবে না বলেও জানান আলী আহমদ।

এদিকে, আগামী ২৬ এপ্রিল সিলেট জেলা বিএনপির বর্তমান কমিটি মেয়াদোর্ত্তীণ হবে। এরপরই সম্মেলনের মাধ্যমে নতুন কমিটি গঠনের কথা রয়েছে। তারেক রহমানের নির্দেশনা অনুযায়ী আগামী কমিটি গঠনতন্ত্র অনুযায়ী ১৫১ সদস্যের হলে পদ-পদবী হারাতে হবে বর্তমান কমিটির ১৩৪ সদস্য। এছাড়া দীর্ঘদিন থেকে দলীয় কার্যক্রমে নিষ্ক্রিয়, সিলেটের বাইরে অবস্থানকারী আরো প্রায় অর্ধশত নেতা পদ পাওয়া নিয়ে শঙ্কায় রয়েছেন। তারেক রহমানের নির্দেশের পর দীর্ঘদিন থেকে নিষ্ক্রিয় থাকা অনেক নেতা রাজনীতিতে সক্রিয় হওয়ারও চেষ্টা করছেন বলে দলীয় সূত্রে জানা গেছে।

প্রসঙ্গত, ২০১৬ সালের ফেব্রুয়ারিতে সিলেট জেলা বিএনপির কাউন্সিল অনুষ্ঠিত হয়। কাউন্সিলে ভোটের মাধ্যমে সভাপতি, সাধারণ সম্পাদক ও সাংগঠনিক সম্পাদক নির্বাচিত হন। ২০১৭ সালের ২৬ এপ্রিল কেন্দ্র থেকে ২৮৫ সদস্যের কমিটি অনুমোদন দেয়া হয়।

এখানে ক্লিক করে শেয়ার করুণ