jagannathpurpotrika-latest news

আজ, , ১৭ই জিলক্বদ, ১৪৪০ হিজরী

সংবাদ শিরোনাম :
«» বিশ্বনাথে জুয়ার আস্তানায় পুলিশের অভিযান, আটক ১ «» হবিগঞ্জে ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে হামলা, অর্থ লুট «» সিলেটে ইয়াবার চালানসহ অাটক ৩ «» বিশ্বনাথে সাজাপ্রাপ্ত আসামী গ্রেপ্তার «» দেশবাসী শুনে রাখেন মিন্নির কিছু হলে আমি আত্মহত্যা করমু «» সুনামগঞ্জে আইনজীবীর বাসায় দুর্ধর্ষ চুরি «» আল্লামা শায়খ যিয়া উদ্দিনের বর্ণাঢ্য জীবন ও কর্ম নিয়ে লিখিত জীবনী স্মারকের মোড়ক উন্মোচন ৮ আগস্ট «» রাজনৈতিক সংকট এখন রাজনৈতিক শূন্যতায় পরিনত হয়েছে- মাওলানা ইসহাক «» বিশ্বনাথে এইচএসসিতে দুই বোনের জিপিএ-৫ লাভ «» দক্ষিণ সুনামগঞ্জে শতাধিক পরিবারে আল হান্নান ইসলামী সমাজ কল্যাণ সংস্থার ত্রাণ বিতরন




রমজানের ৩০ দিনের ৩০টি ফজিলত

১ম রমজানে = রোজাদারকে নবজাতকের মত নিষ্পাপ করে দেওয়া হয়। ২য় রমজানে = রোজাদারের মা -বাবাকে মাফ করে দেওয়া হয়। ৩য় রমজানে = একজন ফেরেশতা আবারও রোজাদারের ক্ষমার ঘোষনা দেয়। ৪র্থ রমজানে = রোজাদারকে আসমানী বড় বড় চার কিতাবের বর্ণ সমান সাওয়াব প্রদান করা হয়। ৫ম রমজানে= মক্কা নগরীর মসজিদে হারামে নামাজ আদায়ের সাওয়াব দেওয়া হয়। ৬ষ্ঠ রমজানে= ফেরেশতাদের সাথে ৭ম আকাশে অবস্থিত বাইতুল মামূর তাওয়াফের সাওয়াব প্রদান করা হয়। ৭ম রমজানে= ফিরাউনের বিরুদ্ধে মুসা আঃ এর পক্ষে সহযোগিতা করার সমান সাওয়াব প্রদান করা হয়। ৮ম রমজানে =রোজাদারের উপর হযরত ইবরাহীম আঃ এর মতো রহমত- বর্ষিত হয়। ৯ম রমজানে= নবী-রাসূলদের সাথে দাড়িয়ে ইবাদতের সমান সওয়াব দেওয়া হয়।১০ম রমজানে= রোজাদারকে উভয় জাহানের কল্যাণ দান করা হয়। ১১তম রমজানে=রোজাদারের মৃত্যু নবজাতকের ন্যায় নিষ্পাপ নিশ্চিত হয়। ১২তম রমজানে= হাশরের ময়দানে রোজাদারের চেহারা পূর্ণিমা চাদের মতো উজ্জল করা হবে। ১৩তম রমজানে=হাশরের ময়দানের সকল বিপদ থেকে নিরাপদ করা হবে।
১৪তম রমজানে= হাশরের ময়দানে হিসাব- নিকাশ সহজ করা হবে। ১৫তম রমজানে = সমস্ত ফিরিস্তারা রোজাদারের জন্য দোয়া করে। ১৬তম রমজানে= আল্লাহপাক রোজাদারকে জাহান্নাম থেকে মুক্তি এবং জান্নাতে প্রবেশের অনুমতি প্রদান করেন। ১৭তম রমজানে= একদিনের জন্য নবীগনের সমান সাওয়াব দেওয়া হবে। ১৮তম রমজানে = রোজাদার এবং তার মা-বাবার প্রতি আল্লাহর সন্তুষ্টির সংবাদ দেওয়া হয়। ১৯তম রমজানে= পৃথিবীর সকল পাথর-কংকর টিলা- টংকর রোজাদারের জন্য দোয়া করতে থাকে। ২০তম রমজানে =আল্লাহরপথে জীবন দানকারী শহীদের সমান সাওয়াব প্রদান করা হয়। ২১তম রমজানে = রোজাদারের জন্য জান্নাতে একটি উজ্জল প্রাসাদ নির্মান করা হয়। ২২তম রমজানে= হাশরের ময়দানের সকল চিন্তা থেকে মুক্ত করা হয়। ২৩তম রমজানে= জান্নাতে রোজাদারের জন্য একটি শহর নির্মান করা হয়। ২৪তম রমজানে = রোজাদারের যে কোন 24টি দোয়া কবুল করা হয়। ২৫তম রমজানে= কবরের শাস্তি চিরতরে বন্ধ করে দেওয়া হয়। ২৬তম রমজানে =৪০ বছর ইবাদতের সমান সওয়াব প্রদান করা হয়। ২৭তম রমজানে= চোখের পলকে পুলসিরাত পার করে দেওয়া হয়। ২৮তম রমজানে= জান্নাতের নেয়ামত দ্বিগুন করা হয়। ২৯তম রমজানে= এক হাজার কবুল হজ্জের সাওয়াব প্রদান করা হয়। ৩০তম রমজানে= পুরা রমজানের ফজিলত দ্বিগুন। পড়া শেষ হলে শেয়ার করে অন্যকে পড়ার সুযোগ দেন।

এখানে ক্লিক করে শেয়ার করুণ