jagannathpurpotrika-latest news

আজ, , ১৬ই শাওয়াল, ১৪৪০ হিজরী

সংবাদ শিরোনাম :
«» খেলাফত মজলিস দক্ষিণ সুরমায় ২১ সদস্য বিশিষ্ট সিলাম ইউনিয়ন শাখার পূর্ণাঙ্গ কমিটি গঠন «» জগন্নাথপুর-সিলেট : বেহাল সড়কে ভোগান্তির শেষ নেই «» শহীদ মুরসির আত্মত্যাগ বিশ্বের মুক্তিকামী মানুষকে পথ দেখাবে: ড. আহমদ আবদুল কাদের «» নারীর মন : আবদুর রহমান জামী «» জামালগঞ্জে আ’লীগ প্রার্থী ইউসুফ আজাদ বিজয়ী «» বিশ্বকাপে ইংল্যান্ডের সর্বোচ্চ রানের ইতিহাস «» জগন্নাথপুরে বঙ্গবন্ধু-বঙ্গমাতা ফুটবল টুর্নামেন্ট শুরু «» মুরসির মৃত্যুতে এরদোয়ান, ‘আমার ভাই শহীদ’ «» শহীদ ইমাম হাফিজ মুরসি প্রেসিডেন্ট হওয়ার জন্য রাজনীতি করেননি : তাঁর স্বপ্ন ছিল কুরআনের রাজ প্রতিষ্ঠা করা «» বিশ্বনাথে ৩ দিনব্যাপী কৃষি প্রযুক্তি মেলার উদ্বোধন করলেন নুনু মিয়া




বিশ্বনাথ আইন-শৃংখলা কমিটির মাসিক সভা

বিশ্বনাথ প্রতিনিধি :: সিলেটের বিশ্বনাথে উপজেলা আইন-শৃংখলা কমিটির মাসিক সভা সোমবার সকালে বিআরডিবি মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত হয়েছে। সভায় উপজেলার ৮টি ইউনিয়নের মধ্যে ৬টি ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান অনুপস্থিত থাকায় ক্ষোভ প্রকাশ করা হয়। এসময় বক্তারা বলেন- একটি কুচক্রিমহল সরকারের উন্নয়ন কার্যক্রমকে বাঁধাগ্রস্থ করার জন্য উপজেলা পরিষদের রাজস্ব আয় যাতে বৃদ্ধি না পায় সে অপচেষ্ঠায় লিপ্ত রয়েছে। তাই উপজেলার রাজস্ব আয় বৃদ্ধি করতেই বিশ্বনাথ পুরাণ ও নতুন বাজারের খাস আদায়ের জোরদাবী জানিয়েছেন বক্তারা। সদ্য সম্পন্ন প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক পদে যাতে ভূয়া বা জাল নাগরিক সনদ দিয়ে আর যাতে কেউ শিক্ষক পদে চাকুরী না পায় সেদিকে লক্ষ্য দেওয়ার জন্য প্রশাসনের সু-দৃষ্টি কামনা করে বক্তারা বলে বিগত নিয়োগে ভূয়া বা জাল নাগরিক সনদে নিয়োগ পাওয়া ৭ জনকে একাধিক তদন্তে প্রমাণিত হওয়ার পরও বাতিল না করাটা দুঃখ জনক। বরং সেই ভূয়া নাগরিক সনদে নিয়োগ পাওয়াদের নিয়োগ বহাল রাখার অপচেষ্টা করছে একটি মহল। আর এতে বঞ্চিত হচ্ছে প্রকৃত দাবীদাররা।
প্রধান অতিথির বক্তব্যে উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও উপজেলা আইন-শৃংখলা কমিটির উপদেষ্টা এস এম নুনু মিয়া বলেন, আমাদের সবাইকে ঐক্যবদ্ধভাবে সরকারের উন্নয়নমূলক কর্মকান্ড সঠিক নিয়মে বাস্তবায়িত করতে হবে। কেউ সরকারের উন্নয়ন কর্মকান্ডকে বাঁধাগ্রস্থ করতে চাইলে তা শক্ত হাতে প্রতিহত করা হবে। আমরা নির্বাচিত হয়ে দায়িত্ব গ্রহণ করার পূর্বে বিগত সময়ে দায়িত্ব থাকা নেতৃবৃন্দ উপজেলা পরিষদের ফান্ডকে একে বারে শূন্য করে গেছেন। অথচ এলাকার মানুষ রয়েছেন উন্নয়ন বঞ্চিত। কিছু মানুষ হয়েছেন আঙ্গুল ফুলে কলাগাছ। আর ভাইস চেয়ারম্যানের সম্মানী বকেয়া থাকাই এর প্রকৃত উদাহরণ। এজন্য এলাকার উন্নয়নের স্বাথেই আমাদেরকে রাজস্ব বৃদ্ধিতে জোর দিতে হবে।
সভাপতির বক্তব্যে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) অমিতাভ পরাগ তালুকদার বলেন, উপজেলার প্রত্যেক ইউনিয়নে বাধ্যতামূলকভাবে ইউনিয়নের আইন-শৃংখলা কমিটির সভা ও সন্ত্রাস-নাশকতা প্রতিরোধ কমিটির মাসিক সভা করতে হবে এবং সভার রেজুলেশন উপজেলা আইন-শৃংখলা কমিটির প্রত্যেক মাসিক সভার পূর্বে তা জমা দিতে হবে। গ্রাম আদালতকে সক্রিয় করার জন্য প্রত্যেক ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যানবৃন্দকে আরোও আন্তরিক হতে হবে। এব্যাপারে এলাকার জনসাধারণকে পূর্বের ন্যায় সচেতন করতে হবে।
সভায় বক্তব্য রাখেন উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) ফাতেমা-তুজ-জোহরা, বিশ্বনাথ থানার অফিসার ইন-চার্জ (ওসি) মোহাম্মদ শামসুদ্দোহা পিপিএম, বিশ্বনাথ উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আলহাজ্ব পংকি খান, সদর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ছয়ফুল হক, দৌলতপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আমির আলী, উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তা মহিউদ্দিন আহমদ, স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের দন্ত চিকিৎসক আরাফাত হোসেন নিলয়, আনসার-ভিডিপি কর্মকর্তা আমির হোসেন পারভেজ খান, সিলেট পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি-১’র বিশ্বনাথ জোনাল অফিসের ডিজিএম সামিউল কবীর, হাজী মফিজ আলী বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় এন্ড কলেজের অধ্যক্ষ নেহারুন নেছা, উপজেলা হিন্দু-বৌদ্ধ-খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদের যুগ্ম সম্পাদক রুনু কান্ত দে, বিশ্বনাথ প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক প্রনঞ্জয় বৈদ্য অপু, সাংবাদিক আশিক আলী, ব্লাস্টের উপজেলা কো-অর্ডিনেটর গীতা রাণী মোদক।
এসময় সভায় উপস্থিত ছিলেন উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের কমান্ডার আবদুল ওয়াহিদ, উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান হাবিবুর রহমান, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান জুলিয়া বেগম, উপজেলা সিনিয়র মৎস্য কর্মকর্তা সফিকুল ইসলাম ভূঁইয়া, রামসুন্দর সরকারি অগ্রগামী মডেল উচ্চ বিদ্যালয়ের সহকারী প্রধান শিক্ষক আবদুল বারী প্রমুখ।

এখানে ক্লিক করে শেয়ার করুণ