jagannathpurpotrika-latest news

আজ, , ১৬ই জিলক্বদ, ১৪৪০ হিজরী

সংবাদ শিরোনাম :
«» আল্লামা শায়খ যিয়া উদ্দিনের বর্ণাঢ্য জীবন ও কর্ম নিয়ে লিখিত জীবনী স্মারকের মোড়ক উন্মোচন ৮ আগস্ট «» রাজনৈতিক সংকট এখন রাজনৈতিক শূন্যতায় পরিনত হয়েছে- মাওলানা ইসহাক «» বিশ্বনাথে এইচএসসিতে দুই বোনের জিপিএ-৫ লাভ «» দক্ষিণ সুনামগঞ্জে শতাধিক পরিবারে আল হান্নান ইসলামী সমাজ কল্যাণ সংস্থার ত্রাণ বিতরন «» মৌলভীবাজারে সিজারে টানা হেচড়ায় নবজাতকের গলা কেটে মৃত্যু «» প্রিতমের গোল্ডের জিপিএ-৫ লাভ «» জগন্নাথপুরে সরকারি নির্দেশনা অমান্য করে পানিবন্দি অসহায় মানুষের কাছ থেকে কিস্তি আদায় করছে এনজিও সংস্থা আশা «» বিশ্বনাথে সরকারি জায়গায় অবৈধ স্থাপনা নির্মাণের অভিযোগ «» ছাতকে নদী থেকে লাশ উদ্ধার  «» ওসমানীনগরে ৩২টি প্রতিষ্ঠানে পাঠদান বন্ধ




জগন্নাথপুরে বকেয়া বিদ্যুৎ বিলের জন্য মামলার প্রস্তুতি, আতঙ্কিত খেলাপী গ্রাহকরা

মো.শাহজাহান মিয়া :: সুনামগঞ্জের জগন্নাথপুরে বকেয়া বিদ্যুৎ বিল আদায়ে অবশেষে গ্রাহকদের বিরুদ্ধে মামলা দায়েরের প্রস্তুতি নিয়েছেন বিদ্যুৎ সরবরাহ কর্তৃপক্ষ। এ নিয়ে বিল খেলাপী গ্রাহকদের মধ্যে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়েছে। যদিও বকেয়া বিল আদায়ে বারবার চেষ্টা করেও অবশেষে ব্যর্থ হয়ে মামলার প্রস্তুতি নেয়া হয়েছে।
জানাগেছে, জগন্নাথপুরে মোট ১৮ হাজার বিদ্যুৎ গ্রাহক রয়েছেন। এর মধ্যে সাড়ে ৪ হাজার গ্রাহকের কাছে মোট সাড়ে ৫ কোটি টাকা বকেয়া বিল রয়েছে। তবে গ্রাহকদের বিরুদ্ধে মামলা না করে বিদ্যুৎ বিল আদায়ে সব রকম চেষ্টা করে যাচ্ছে কর্তৃপক্ষ। তাতেও কাজ না হওয়ায় অবশেষে মামলার প্রস্তুতি শুরু হয়। এর মধ্যে প্রায় শতাধিক মসজিদের কাছে দেড় কোটি টাকা বকেয়া বিল রয়েছে। যদিও মানবিক কারণে মসজিদ গুলোর সংযোগ বিচ্ছিন্ন করা হচ্ছে না। তবে মসজিদ কমিটির বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ জানান।
জানাযায়, জগন্নাথপুরে ঘনঘন বিদ্যুৎ বিভ্রাট হয়ে থাকে। এতে গ্রাহকদের ভোগান্তির শেষ থাকে না। এসব বিদ্যুৎ বিভ্রাট রোধে রীতিমতো হিমশিম খাচ্ছেন কর্তৃপক্ষ। এর মধ্যে বিদ্যুৎ বিভাগে লোকবল সংকট রয়েছে। তারপরও দিনরাত চেষ্টা করেও বিদ্যুৎ বিভ্রাট রোধ করা যাচ্ছে না। এর কারণ হিসেবে জানাগেছে, জগন্নাথপুরে বিদ্যুৎ চুরি ও অবৈধ বিদ্যুৎ সংযোগ। তবে বিদ্যুৎ চুরি রোধে ও অবৈধ বিদ্যুৎ সংযোগ বিচ্ছিন্ন করণ অভিযান নিয়মিত চলছে। এতেও রোধ করা সম্ভব হচ্ছে না। কারণ জগন্নাথপুরে প্রায় কয়েক হাজার ব্যাটারি চালিত ইজিবাইক (টমটম) ও অটোরিকশা চলছে। এসব গাড়ির ব্যাটারি চার্জ করতে গিয়ে বিদ্যুৎ চুরি হচ্ছে।
খোঁজ নিয়ে জানাযায়, প্রতিদিন একটি টমটম চার্জ করাতে ১০০ থেকে ১৫০ টাকা লাগে। এসব গাড়ি চার্জ করতে গিয়ে জগন্নাথপুরে প্রায় শতাধিক গ্যারেজ গঠে উঠেছে। এসব গ্যারেজে অবৈধভাবে চুরি করা লাইন দিয়ে ব্যাটারি চার্জ করা হয়। এছাড়া বিভিন্ন কল-কারখানা ও বাসা-বাড়িতেও অবৈধ সংযোগ রয়েছে। যদিও কর্তৃপক্ষের অভিযানে এসব অবৈধ সংযোগ বিচ্ছিন্ন করা হলেও কর্তৃপক্ষ ফিরে গেলে আবারো লাইন সংযোগ দেয়া হয়। যে কারণে জগন্নাথপুরে বিদ্যুৎ চুরি সামাল দেয়া যাচ্ছে না। এদিকে-বকেয়া বিলের জন্য অনেকের বিদ্যুৎ সংযোগ বিচ্ছিন্ন করা হলেও অনেক সময় আবারো বিল না দিয়েই অবৈধ সংযোগ দেয়া হয়। এসব ঘটনায় কর্তৃপক্ষ দিনেদিনে আরো কঠোর হচ্ছেন। এর মধ্যে প্রিপেইড গ্রাহকদের কাছে থাকা পুরনো বিল আদায়ে কঠোর ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে।
৯ জুলাই মঙ্গলবার এ ব্যাপারে জানতে চাইলে জগন্নাথপুর উপজেলা আবাসিক প্রকৌশলী (বিদ্যুৎ) আজিজুল ইসলাম আজাদ বলেন, বকেয়া বিদ্যুৎ বিল আদায়ে এ পর্যন্ত ১৬৭ জন গ্রাহকের বিরুদ্ধে মামলা দায়েরের প্রস্তুতি সম্পন্ন হয়েছে। এর মধ্যে অন্য গ্রাহকরা যদি বকেয়া বিল পরিশোধ না করেন, তাহলে ধারবাহিকভাবে তাদের বিরুদ্ধেও মামলা করা হবে। এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, জগন্নাথপুরে ঘনঘন বিদ্যুৎ বিভ্রাটের মুল কারণ হচ্ছে বিদ্যুৎ চুরি। বিশেষ করে ব্যাটারি চালিত গাড়ি ইজিবাইক ও অটোরিকশার ব্যাটারি চার্জ করতে গিয়ে বিদ্যুৎ চুরি বেড়েছে। তবে বিদ্যুৎ চুরি রোধে অবশ্যই কঠোর ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে। এছাড়া জগন্নাথপুর পৌরসভা সহ বিভিন্ন ইউনিয়ন পরিষদের সংশ্লিষ্ট জনপ্রতিনিধিদের প্রতি আহবান জানিয়ে তিনি বলেন, এসব গাড়ির প্লেইট নাম্বার দেয়ার আগে তার বৈধ বিদ্যুৎ সংযোগ আছে কি না, তা যাচাই-বাছাই করুন। তা হলেই অনেকাংশে বিদ্যুৎ চুরি রোধ করা যাবে।

এখানে ক্লিক করে শেয়ার করুণ