jagannathpurpotrika-latest news

আজ, , ২৩শে সফর, ১৪৪১ হিজরী

সংবাদ শিরোনাম :
«» অবশেষে বিশ্বনাথ পৌরসভা অনুমোদন «» বিশ্বনাথ উপজেলা ‘পৌরসভা’য় উন্নীত হওয়ায় আ’লীগের মিষ্টি বিতরণ «» বিশ্বনাথে জমিয়তের মানববন্ধনে জনতার ঢল «» সিলেটে জমিয়তে সমাবেশে নবী প্রেমিক শহীদদের রক্তের বদলা নেওয়া হবে- শায়খ জিয়া উদ্দিন «» দোয়ারায় মোবাইল কোটে জব্ধকৃত পাথর চুরি করে বিক্রির দায় ২ জন আটক অতপর জরিমানা করে মুক্তি «» বিশ্বনাথে তাওহীদি জনতার বিক্ষোভ ও প্রতিবাদ সভা অনুষ্ঠিত «» জগন্নাথপুরে অাওয়ামীলীগের সম্মেলন সফলের লক্ষে সৈয়দপুরে গণ-মিছিল অনুষ্ঠিত «» ছাতকে এমপি মানিকের মাতার সুস্থতা কামনায় দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত «» ক্রিকেটারদের ধর্মঘটের ডাক «» হেফাজতে ইসলামের সংবাদ সম্মেলনে আল্লামা জুনায়েদ বাবুনগরীর কর্মসূচি ঘোষণা




কওমি মাদরাসায় স্থাপন হচ্ছে বঙ্গবন্ধু ও মুক্তিযুদ্ধ কর্নার

শামস শামীম :: সুনামগঞ্জের কওমি মাদরাসায় স্থাপন হচ্ছে বঙ্গবন্ধু ও মুক্তিযুদ্ধ কর্নার। মাদরাসার নির্দিষ্ট কক্ষে স্থাপিত বঙ্গবন্ধু ও মুক্তিযুদ্ধ কর্নারে মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস সংক্রান্ত বই পুস্তক ও জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সংগ্রামী জীবনের তথ্য থাকবে। কওমি মাদরাসাগুলোর শিক্ষার্থীরা যাতে মুক্তিযুদ্ধ সম্পর্কে সঠিক তথ্য জেনে মুক্তিযুদ্ধের অসাম্প্রদায়িক চেতনায় দেশপ্রেমিক নাগরিক হিসেবে গড়ে ওঠতে পারে সে লক্ষ্যেই এই উদ্যোগ নিয়েছে সুনামগঞ্জ জেলা প্রশাসন।

 

 

জেলা প্রশাসন সূত্রে জানা গেছে, জেলার সকল কলেজ, উচ্চ বিদ্যালয়-প্রাথমিক বিদ্যালয়, আলিয়া মাদরাসায় বঙ্গবন্ধু ও মুক্তিযুদ্ধ কর্নার স্থাপিত হচ্ছে। ইতোমধ্যে বিভিন্ন উপজেলায় আনুষ্ঠানিকভাবে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের অতিরিক্ত কক্ষে বঙ্গবন্ধু ও মুক্তিযুদ্ধ কর্নার স্থাপন করে উদ্বোধন করা হয়েছে। সেখানে মুক্তিযুদ্ধের বই, স্থানীয় লেখকদের মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক বই, স্থানীয় বীরপ্রতীকদের ছবি, জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ছবি, জাতীয় চার নেতার ছবিসহ মুক্তিযুদ্ধের ঐতিহাসিক ছবি ও তথ্য স্থান পেয়েছে। এতে শিক্ষার্থীরা সরাসরি মুক্তিযুদ্ধের জাতীয় ও স্থানীয় ইতিহাস জানার সুযোগ পাচ্ছে। জানতে পারছে বঙ্গবন্ধুর আত্মত্যাগ, দেশ ও মানুষের পক্ষের লড়াইয়ের ইতিহাস।
জানাযায়, জেলার তিন শতাধিক কওমি মাদরাসায় মুক্তিযুদ্ধকে জানার কোনো সুযোগ নেই। পাঠ্যপুস্তকে মুক্তিযুদ্ধ ও ভাষা আন্দোলনের ইতিহাস পড়ানো হয় না। তাই মূলধারা শিক্ষা থেকে বাদপড়া কওমি মাদরাসাগুলোর শিক্ষার্থীদেরও মুক্তিযুদ্ধের জাতীয় ও স্থানীয় ইতিহাস সম্পর্কে জানাতে জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ আব্দুল আহাদ কওমি মাদরাসায় বঙ্গবন্ধু ও মুক্তিযুদ্ধ কর্নার স্থাপনের পরিকল্পনা নেন। মাদরাসা পড়ুয়া শিক্ষার্থীরা যাতে স্বাধীনতাযুদ্ধের প্রকৃত ইতিহাস জেনে মুক্তিযুদ্ধের অসাম্প্রদায়িক চেতনায় দেশপ্রেমিক যোগ্য নাগরিক হিসেবে গড়ে ওঠতে পারে সে লক্ষ্যে প্রতিষ্ঠানের সংশ্লিষ্টদের সঙ্গে একাধিকবার মতবিনিময় করা হয়েছে।

 

 

 

জানা গেছে, সুনামগঞ্জ জেলায় প্রায় তিন শতাধিক কওমি মাদরাসা আছে। এই মাদরাসাগুলো আজাদ দ্বীনি এদারায়ে তালিম বাংলাদেশ ও বেফাকুল মাদারিস বাংলাদেশ বোর্ড দ্বারা পরিচালিত হচ্ছে। এগুলো স্থানীয়ভাবে তদারকি করে নেজামুল মাদারিস সুনামগঞ্জ নামের মাদরাসাভিত্তিক একটি সংগঠন। সরকারি অনুদান ছাড়াই মানুষজনের সহায়তায় পাঠদান চলে মাদরাসাগুলোতে। প্রতিষ্ঠানগুলোতে এখনো বাংলা ভাষা ও স্থানীয় ইতিহাসের তুলনায় আরবি, ফার্সি ও উর্দু ভাষায় পাঠ দেয়া হয়। বিজ্ঞান ও গণিত বিষয়ে নিবিড় পাঠের সুযোগ নেই। যে কারণে মূলধারার শিক্ষা ব্যবস্থা থেকে প্রতিষ্ঠানগুলো এখনো দূরে আছে বলে মনে করেন সচেতন মানুষ।

 

 

 

জানা গেছে, জেলার কওমি মাদরাসাগুলোতে বঙ্গবন্ধু ও মুক্তিযুদ্ধ কর্নার স্থাপনের লক্ষ্যে ইতোমধ্যে মাদরাসার নীতি নির্ধারণী মহল, বোর্ডের প্রধানসহ বিশিষ্ট আলেমদের নিয়ে একাধিক বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়েছে। বৈঠকে নানা আলোচনা শেষে মাদরাসা কর্তৃপক্ষ মুক্তিযুদ্ধ ও বঙ্গবন্ধু কর্নার স্থাপনে একমত হয়েছেন। ইতোমধ্যে কিছু প্রতিষ্ঠানে কাজও শুরু হয়েছে। ডিসেম্বরের মধ্যে অন্তত অর্ধশত কওমি মাদরাসায় বঙ্গবন্ধু ও মুক্তিযুদ্ধ কর্নার স্থাপন সম্পন্ন হবে। স্থানীয় ইউনিয়ন পরিষদ, উপজেলা পরিষদ ও পৌরসভাসহ স্থানীয় সরকারের প্রতিষ্ঠানগুলো বঙ্গবন্ধু ও মুক্তিযুদ্ধ কর্নার স্থাপনে সহযোগিতা করবে।

 

 

 

আরো জানা গেছে, ইতোমধ্যে জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ আব্দুল আহাদ জেলার মাধ্যমিক, উচ্চ মাধ্যমিক ও প্রাথমিক শিক্ষা বিভাগ এবং কওমি মাদরাসা নিয়ন্ত্রণকারী প্রতিষ্ঠানগুলোকে নিয়ে চারটি মতবিনিময় সভা করেছেন। কওমি মাদরাসার পক্ষে আজাদ দ্বীনি এদারায়ে তালিম বাংলাদেশের সিলেট বিভাগের মহাসচিবসহ নেজামুল মাদারিস সুনামগঞ্জের নেতৃবৃন্দও উপস্থিত ছিলেন। তারাও মুক্তিযুদ্ধ ও বঙ্গবন্ধু কর্নার স্থাপনে একমত পোষণ করেছেন। ইতোমধ্যে সুনামগঞ্জ জেলা শহরের মদনিয়া ও তেঘরিয়া মাদরাসায় বঙ্গবন্ধু ও মুক্তিযুদ্ধ কর্নার স্থাপনে কর্তৃপক্ষ উদ্যোগ নিয়েছেন বলে জানা গেছে।

 

 

 

সুনামগঞ্জ সদর উপজেলার মোহনপুর তালিমুল উলুম মাদরাসার মুহতামিম মাওলানা মো. শামসুল ইসলাম বলেন, মহান স্বাধীনতা আমাদের হাজার বছরের শ্রেষ্ঠ অর্জন। বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান স্বাধীনতার মহান স্থপতি। তাঁর ডাকে বাঙালি মুক্তিযুদ্ধে ঝাঁপিয়ে পড়ে স্বাধীনতা ছিনিয়ে এনেছিল। সেই স্বাধীনতাযুদ্ধের প্রকৃত ইতিহাস আমাদের জানা অত্যন্ত জরুরি। ইতিহাস জানতে আমরা মাদরাসায় বঙ্গবন্ধু ও মুক্তিযুদ্ধ কর্নার স্থাপনের উদ্যোগকে স্বাগত জানাই। আমরা চাই আমাদের শিক্ষার্থীরা নিজেদের স্বাধীনতাযুদ্ধের প্রকৃত ইতিহাস জানুক।

 

 

 

সুনামগঞ্জ কওমি মাদরাসা নিয়ন্ত্রণ কর্তৃপক্ষ আজাদ দ্বীনি এদারায়ে তালিম বাংলাদেশ, সিলেট বিভাগের মহাসচিব ও সুনামগঞ্জ মদনিয়া মাদরাসার অধ্যক্ষ মাওলানা আব্দুল বছির বলেন, আমরা কখনো মুক্তিযুদ্ধকে অস্বীকার করিনি। আমি নিজেও মুক্তিযুদ্ধে যাওয়ার জন্য স্থানীয়ভাবে ট্রেনিং নিয়েছিলাম। কিন্তু যোগদানের আগেই দেশ স্বাধীন হয়ে গেছে। ডিসি মহোদয় আমাদের সঙ্গে একাধিকবার বৈঠক করে আমাদের উন্নয়ন ও সমস্যা সম্পর্কে অবগত হওয়ার পাশাপাশি মুক্তিযুদ্ধ ও বঙ্গবন্ধু কর্নার স্থাপনের কথা জানিয়েছেন। আমরা স্বাগত জানিয়েছি। আমরাও চাই আমাদের শিক্ষার্থীরা মহান মুক্তিযুদ্ধ ও জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান সম্পর্কে জানুক। আমি আমার মাদরাসায় বঙ্গবন্ধু ও মুক্তিযুদ্ধ কর্নার স্থাপনের কাজ শুরু করেছি।

 

 

 

জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ আব্দুল আহাদ বলেন, আমাদের জেলার কলেজ, হাইস্কুল, প্রাইমারি স্কুল, আলিয়া মাদরাসা ও কওমি মাদরাসায় বঙ্গবন্ধু ও মুক্তিযুদ্ধ কর্নার স্থাপিত হচ্ছে। ডিসেম্বরের মধ্যেই কাজ শেষ হবে। কওমি মাদরাসার স্থানীয় নীতি নির্ধারণী মহলের সঙ্গে কথা এ নিয়ে কথা বলেছি। তারা তাদের সমস্যার কথা আমাদের জানিয়েছেন। তারা বঙ্গবন্ধু ও মুক্তিযুদ্ধ কর্নার স্থাপনে একমত হয়েছেন। আমরা প্রথম পর্যায়ে ৪৬টি কওমি মাদরাসায় বঙ্গবন্ধু ও মুক্তিযুদ্ধ কর্নার স্থাপনের সিদ্ধান্ত নিয়েছি।

এখানে ক্লিক করে শেয়ার করুণ