jagannathpurpotrika-latest news

আজ, , ২৩শে সফর, ১৪৪১ হিজরী

সংবাদ শিরোনাম :
«» অবশেষে বিশ্বনাথ পৌরসভা অনুমোদন «» বিশ্বনাথ উপজেলা ‘পৌরসভা’য় উন্নীত হওয়ায় আ’লীগের মিষ্টি বিতরণ «» বিশ্বনাথে জমিয়তের মানববন্ধনে জনতার ঢল «» সিলেটে জমিয়তে সমাবেশে নবী প্রেমিক শহীদদের রক্তের বদলা নেওয়া হবে- শায়খ জিয়া উদ্দিন «» দোয়ারায় মোবাইল কোটে জব্ধকৃত পাথর চুরি করে বিক্রির দায় ২ জন আটক অতপর জরিমানা করে মুক্তি «» বিশ্বনাথে তাওহীদি জনতার বিক্ষোভ ও প্রতিবাদ সভা অনুষ্ঠিত «» জগন্নাথপুরে অাওয়ামীলীগের সম্মেলন সফলের লক্ষে সৈয়দপুরে গণ-মিছিল অনুষ্ঠিত «» ছাতকে এমপি মানিকের মাতার সুস্থতা কামনায় দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত «» ক্রিকেটারদের ধর্মঘটের ডাক «» হেফাজতে ইসলামের সংবাদ সম্মেলনে আল্লামা জুনায়েদ বাবুনগরীর কর্মসূচি ঘোষণা




লাল-সবুজের পতাকা মোড়ানো ক্ষুদে বাংলাদেশ ছাতকে বেরাজপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়

আ‌নোয়ার হো‌সেন র‌নি, ছাতক থেকে :: সুনামগঞ্জের ছাতকে বেরাজপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় লাল-সবুজের পতাকায় মোড়ানো ক্ষুদে বাংলাদেশ। বিজয়ের এই ডিসেম্বরে কোমলমতি শিশুদের জাতীয় পতাকায় মোড়ানো ছাতকে  দৃষ্টিনন্দন স্কুল গুলোর মধ্যে অন্যতম হ‌চ্ছে বেরাজপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়।

জানা যায়, শিশুদের স্কুলগামী করা, ঝরেপড়া রোধ, জাতীয় পতাকা ও সঙ্গীতের প্রতি শ্রদ্ধা এবং মুক্তিযুদ্ধের মূল্যবোধে হাতেখড়ি দেয়ার লক্ষ্যে ছাতক উপ‌জেলার বেশ কয়েকটি সরকারি প্রাইমারী বিদ্যালয় গুলো সামনে বিজয়ের মাস ডিসেম্বরে এ ব্যতিক্রমধর্মী উদ্যোগ বাস্তবায়ন করেছে উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা। শিল্প নগরী ছাতক উপজেলার বেশ কিছু সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ভবনের লাল সবুজের রং আ্ঁকিয়ে জাতীয় পতাকার চিত্রে মুডিয়ে দেয়া হয়। পুরো স্কুল ভবনটিই যেন একটি লাল সবুজ পতাকা। পেশাদার শিল্পীদের দিয়ে অঙ্কন কাজ করানো একেকটি স্কুলকে একেকটি লালসবুজের বাংলাদেশ মনে করা হ‌চ্ছে। কোন কোন স্কুলের ভেতরের দেয়ালও একই ভাবে মনোরম চিত্রে শোভায়িত ক‌রে‌ছে বিদ্যালয়‌কে সেখানে মুক্তিযুদ্ধের চিত্রকে প্রাধান্য দেয়া হচ্ছে।

ছাতকে বেরাজপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মানিক মিয়া জানান, শিল্প নগরী উপ‌জেলার সেরা একটি মডেল হ‌বে । লাল সবুজ পতাকায় মোড়ানো ভবন মানেই সেটি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়। এজন্য কাউকে সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় খুঁজে বের করতে কষ্ট করতে হবে না। তিনি গনমাধ্যমকে আরো জানান, প্রথম শ্রেণীতে পড়া একটি কচি-কাচা শিশু এখন সহজেই জাতীয় পতাকা চিনতে পারে। স্কুলে জাতীয় সঙ্গীত গাইতে সে স্বাচ্ছন্দবোধ করে। লাল সবুজকে মন থেকে সে ভালোবাসতে শুরু করে। জাতীয় পতাকার সাথে সাথে সে মুক্তিযুদ্ধের গল্প শুনতে দারুন পছন্দ করে। জাতীয় পতাকা, সঙ্গীত আর মুক্তিযুদ্ধ তার হৃদয়ে একাকার হয়ে যায়। শিশুটি মুক্তিযুদ্ধের মূল্যবোধ নিয়েই বড় হয়ে উঠার পাশাপাশি দেশপ্রেমের সাথে পরিচিত হবে নতুন প্রজন্ম শিশুরা।

এখানে ক্লিক করে শেয়ার করুণ