jagannathpurpotrika-latest news

আজ, , ১০ই রবিউস-সানি, ১৪৪১ হিজরী

সংবাদ শিরোনাম :




ফেঞ্চুগঞ্জে কাজের ব্যয় ৪২ কোটি টাকা: এক কিলোমিটার সড়কেই ফাটল!

মো. দেলওয়ার হোসেন পাপ্পু, ফেঞ্চুগঞ্জ :: রোড হচ্ছে ফেঞ্চুগঞ্জ আর বেসিনপ্লান্ট বসেছে দক্ষিণ সুরমার সোনারগাঁয়, এমনই এক অনিয়মের ফাঁধে সিলেটের ফেঞ্চুগঞ্জে বহুল প্রত্যাশিত ফেঞ্চুগঞ্জ সার্কুলার রোডের (ফেঞ্চুগঞ্জ-মাইজগাঁও-পালবাড়ী) ঢালাই কাজে দেখা দিয়েছে ফাটল। নিন্মমানের নির্মাণ সামগ্রীর ব্যবহারে এই ফাটল দেখা দিয়েছে, এমন অভিযোগ স্থানীয়দের। সড়ক বিভাগের দায়িত্বশীল প্রকৌশলীদের অবহেলায় দেশের উন্নয়ন খাতের প্রায় ৪২ কোটি টাকা ব্যয়ে সড়কটির নির্মাণকাজ ১ কিলোমিটার হতে না হতেই শুরুতেই ফাটল দেখা দেয়ায় একদিকে প্রশ্নবিদ্ধ সিলেটের সড়ক বিভাগ আর অন্যদিকে হতাশ উপজেলাবাসী।

 

 

গত ২৭ অক্টোবর রোববার বিকেলে সিলেট-৩ আসনের সাংসদ আলহাজ্জ¦ মাহমুদ উস সামাদ চৌধুরী এ ঢালাই কাজের উদ্বোধন করেন। এ সময় উপস্থিত ছিলেন সড়ক ও জনপথ বিভাগ সিলেটের নির্বাহী প্রকৌশলী রিতেশ বড়–য়া, উপ-বিভাগীয় প্রকৌশলী নুরুল মজিদ চৌধুরী, উপ-সহকারি প্রকৌশলী সাইদুর রহমান ও ফেঞ্চুগঞ্জ উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মুক্তিযোদ্ধা আলহাজ্জ¦ মোঃ নুরুল ইসলাম প্রমূখ। সেদিন এক সংক্ষিপ্ত বক্তব্যে মাহমুদ উস সামাদ চৌধুরী এমপি এই সড়কের নামকরণ করেন “ফেঞ্চুগঞ্জ সার্কুলার রোড”।


প্রায় ৪২ কোটি টাকা ব্যয়ে এ সড়ক নির্মাণকারী ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান “স্পেক্ট্রা লিমিটেড এন্ড ওয়াহিদ কন্সট্রাকশন”। জানা যায়, ওই প্রতিষ্ঠানটি বালু, পাথর, ইট, রাজমিস্ত্রী ও লেবার সরবরাহের দায়িত্ব প্রদান করেছে ফেঞ্চুগঞ্জের কয়েকটি ব্যবসায়ী গ্রæপকে। অটোমেটিক মেশিনে ঢালাই মশলা মাড়াইয়ের জন্য প্রায় ২০ কিলোমিটার দূরে অর্থাৎ দক্ষিণ সুরমা উপজেলার সোনারগাঁ আবাসিক এলাকায় বসানো হয়েছে বেসিনপ্লান্ট। সেখান থেকে নিজ খেয়াল খুশিমত মাড়াইকৃত ঢালাই মশলা এনে ফেঞ্চুগঞ্জে সার্কুলার রোডের কাজ চলছে দিবা-রাত্রি। সেই কাজের অনিয়ম তদারকির দায়িত্ব সড়কবিভাগের দায়িত্বশীল প্রকৌশলীদের থাকলেও তাদের অবহেলায় অনিয়ম দেখা দিয়েছে সড়কে।

ঢালাই কাজে ফাটল! স্থানীয়দের এমন অভিযোগের সত্যতা খুঁজতে বুধবার (২৭ নভেম্বর) সকালে  সরেজমিন গিয়ে দেখা যায় উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদ কার্য্যালয়ের সম্মূখ থেকে পশ্চিম দিকে বেশ কয়েকটি বøকে এই ফাটল দেখা দিয়েছে। নাম প্রকাশ না করার শর্তে স্থানীয়রা আমাদের এ প্রতিবেদককে জানান, নিম্নমানের বালু, পাথর ব্যবহারে এমনটি হয়েছে। নির্মাণকাজের এক রাজমিস্ত্রী জানান, ঢালাই মশলা মিক্সিং ত্রুটির কারনে এমনটি হতে পারে, এই ত্রæটি অব্যাহত থাকলে এক ফুট উচ্চতার ঢালাই এক সময় বৃহদাকৃতির ফাটল দেখা দিতে পারে বলে দাবি করছেন ওই মিস্ত্রী। সড়কের বিভিন্ন স্থানে এ ধরনের ফাটল দেখা দিয়েছে, পরে তা মশলা দিয়ে মেরামত করা হয়েছে যা শাখ দিয়ে মাছ ঢাকার মত! ভারী যানবাহন চলামাত্র সড়কের অনিয়ম দৃশ্যমান হবে, জানালেন স্থানীয়রা।

এ ব্যাপারে স্পেক্ট্রা লিমিটেড এন্ড ওয়াহিদ কন্সট্রাকশনের প্রকল্প ম্যানেজার জগলুল হায়দার সড়ক ফাটলের সত্যতা স্বীকার করে জানান, সিমেন্টের প্রমোশন বেশি হওয়াতে মাত্র ১/২ মিলিমিটার ফাটল দেখা দিয়েছে যা গাউটিং (সিমেন্ট পানি মিক্সড) দিলেই সেরে যাবে। স্থানীয় ব্যবসায়ীরা বালু পাথর ও ইট সরবরাহ করছেন যা আমরা নিতে বাধ্য হয়েছি। তবে সিডিউল মোতাবেক কাজ হচ্ছে বলে জানালেন প্রকল্প ম্যানেজার জগলুল হায়দার।

সড়ক ও জনপথ বিভাগ সিলেটের উপ-বিভাগীয় প্রকৌশলী নুরুল মজিদ চৌধুরীর ব্যাক্তিগত মোবাইল নাম্বারে একাধিকবার কল করেও পাওয়া যায়নি তবে সাইট সুপারভাইজার ও উপ-সহকারী প্রকৌশলী সাইদুর জানান, আবহাওয়া জনিতকারণে এমনটি হতে পারে, বিস্তারীত জানতে উপ-বিভাগীয় প্রকৌশলী নুরুল মজিদ চৌধুরী স্যারকে কল দিন।

জানা যায়, ৯ কিলোঃ ১’শ মিটার দৈর্ঘ্য ফেঞ্চুগঞ্জ-মাইজগাঁও-পালবাড়ী সড়কের প্রাক্কলিত মূল্য ছিল ৪৬ কোটি টাকা। এর দরপত্র মূল্য নির্ধারন করা হয়েছে ৪২ কোটি টাকা। স্পেক্ট্রা লিমিটেড এন্ড ওয়াহিদ কন্সট্রাকশন যৌথভাবে এ সড়ক নির্মাণের দায়িত্ব পায়। এই সড়কটির নির্মাণ হচ্ছে দু’ভাগে, যার একভাগে রয়েছে আরসিসি ঢালাই আর অন্যভাগে গালাদ্বারা কার্পেটিং। ৯ কিলোমিটারে ১শ’ মিটারের মধ্যে ৩ কিলো ৪০০ মিটার হবে আরসিসিদ্বারা ঢালাই, এর মধ্যে প্রথমে হবে ৪ ইঞ্চি সিসি ঢালাই এবং পরে হবে ১২ ইঞ্চি অর্থাৎ ১ ফুট আরসিসি ঢালাই, যার চওড়া হবে ১৮ ফুট। এছাড়া এ সড়কের পাশে থাকবে সাড়ে ৫ কিলোমিটার ড্রেইন।
এখানে ক্লিক করে শেয়ার করুণ