jagannathpurpotrika-latest news

আজ, , ৯ই সফর, ১৪৪২ হিজরী

সংবাদ শিরোনাম :
«» ওসমানীনগরে সাদিপুর ইউপির উপনির্বাচনে ৪ প্রার্থীর মনোনয়ন বৈধ «» নবীগঞ্জে পৌর নির্বাচনে সম্ভাব্য প্রার্থীরা প্রচারণায় মাঠে «» এমসি কলেজে ধর্ষণকারীদের শাস্তি চেয়ে যা বললেন শফিউল আলম নাদেল «» বিশ্বনাথে চাচাতো ভাইদের বিরুদ্ধে সংবাদ সম্মেলন «» বিশ্বনাথে মামলার ৯ মাসেও দেয়া হওয়নি প্রতিবেদন : বিপাকে মহিলা «» বিশ্বনাথে কুটি মিয়া আর নেই, দাফন সম্পন্ন «» বিশ্বনাথে দশঘর ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচনের তফশীল ঘোষণা «» কৃষকদের স্বপ্ন পানিতে তলিয়ে গেছে ছাতকে আবারো বন্যায় বিস্তীর্ণ এলাকা প্লাবিত «» সিলেটে ছাত্র মজলিসের বিক্ষোভ সমাবেশে অনতিবিলম্বে দোষীদের শাস্থি নিশ্চিত করতে হবে- আফজাল হোসাইন কামিল «» এমসি ছাত্রাবাসে তরুণীকে গণধর্ষণ, ৯ জনের বিরুদ্ধে থানায় মামলা




বিয়ের প্রথম মাসেই ৫ মাসের অন্তঃসত্ত্বা, অতঃপর…

ডেস্ক রিপোর্ট :: বিয়ে হওয়ার একমাসের মাথায় ৫ মাসের অন্তঃসত্ত্বা। এমন পরিস্থিতির শিকার হয়ে তালাক নিয়ে পিতৃগৃহে ফিরে আসতে হলো বন্যা (ছদ্মনাম)কে। সপ্তম শ্রেণি পড়ুয়া ওই মেয়ের মা বাদী হয়ে থানায় অভিযোগ করলেন পাশের বাড়ির আক্তার হোসেন (২৪) নামের যুবকসহ ৫ জনের বিরুদ্ধে।

 

কালীগঞ্জ উপজেলার চন্দ্রপুর ইউনিয়নের লতাবর গ্রামের দুলাল হোসেনের স্কুল পড়ুয়া সপ্তম শ্রেণির ছাত্রী বন্যার মা স্থানীয় থানায় এ অভিযোগ করেন। তিনি তার অভিযোগে জানান, ‘পাশের বাড়ির খোরশেদ আলমের ছেলে আক্তার হোসেন (২৪) বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে আমার মেয়ের সাথে সম্পর্ক গড়ে তোলে। এতে মেয়েটি অন্তঃসত্ত্বা হয়ে পড়ে। ঘটনাটি প্রকাশ হলে সংশ্লিষ্ট এলাকার গণ্যমান্য ব্যক্তিরা স্থানীয়ভাবে মীমাংসার চেষ্টা চালান। কিন্তু অভিযুক্তের পরিবার তা’ প্রত্যাখ্যান করেন।’ ৩রা সেপ্টেম্বর রাত ৯টার দিকে ওই ছাত্রীর মা রাশিদা বেগম বাদী হয়ে কালীগঞ্জ থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেন।

 

 

অভিযোগে আক্তার হোসেনসহ পাঁচজনকে আসামি করা হয়েছে। এ বিষয়ে জানতে চাইলে ভুক্তভোগী ছাত্রীর মা বলেন, ‘আমি আমার মেয়ের সঙ্গে হওয়া ঘটনার জন্য দায়ী ব্যক্তির উপযুক্ত বিচার চাই।’ অভিযোগের বিষয়ে কথিত আক্তার হোসেনের সঙ্গে যোগাযোগের চেষ্টা করলে তার মোবাইল ফোন বন্ধ পাওয়া যায়। তার ভাই আকরাম হোসেনের সঙ্গে এ প্রতিবেদকের কথা হয়। তিনি বলেন, ‘আমাদের বিরুদ্ধে যে অভিযোগ করা হয়েছে, তা সম্পূর্ণ মিথ্যা। মেয়েটির দুই মাস আগে পাশের ইউনিয়ন চলবলার মদনপুর গ্রামের রহিম উদ্দিনের ছেলে পারভেজ আলী (২৩)-র সাথে আনুষ্ঠানিক ভাবে বিয়ে হয়।

 

 

বিয়ের কিছুদিন পর মেয়েটি অন্তঃসত্ত্বার বিষয়টি জানাজানি হলে গত ২৭শে আগস্ট চলবলা ইউনিয়নের কাজী অফিসে উভয় পক্ষের সম্মতিক্রমে তালাকের মাধ্যমে ছাড়াছাড়ি হয়ে যায়। আকরাম হোসেন আরো জানান, আমার ভাইয়ের সাথে যদি সম্পর্কই ছিল, তা’হলে অন্যত্র বিয়ে দেয়ার আগে কেন অভিযোগ করেনি।’

 

 

এদিকে, ওই ছাত্রী অসুস্থ হয়ে পড়লে গত ১লা সেপ্টেম্বর কালীগঞ্জ স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসা শেষে নিজ বাড়ি ফেরার পথে তুষভান্ডার চিড়ার মিল নামক স্থানে অভিযুক্তের ভাইয়েরা ভুক্তভোগীকে অপহরণ করার চেষ্টা করেন বলে জানান তার মা। কালীগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আরজু মো. সাজ্জাদ হোসেন অভিযোগের সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, ভুক্তভোগী ছাত্রীর মা থানায় অভিযোগ দায়ের করেছেন। বিষয়টি স্পর্শকাতর। তদন্ত করে যথাযথ আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।-মানবজমিন

এখানে ক্লিক করে শেয়ার করুণ