jagannathpurpotrika-latest news

আজ, , ৯ই সফর, ১৪৪২ হিজরী

সংবাদ শিরোনাম :
«» নবীগঞ্জে পৌর নির্বাচনে সম্ভাব্য প্রার্থীরা প্রচারণায় মাঠে «» এমসি কলেজে ধর্ষণকারীদের শাস্তি চেয়ে যা বললেন শফিউল আলম নাদেল «» বিশ্বনাথে চাচাতো ভাইদের বিরুদ্ধে সংবাদ সম্মেলন «» বিশ্বনাথে মামলার ৯ মাসেও দেয়া হওয়নি প্রতিবেদন : বিপাকে মহিলা «» বিশ্বনাথে কুটি মিয়া আর নেই, দাফন সম্পন্ন «» বিশ্বনাথে দশঘর ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচনের তফশীল ঘোষণা «» কৃষকদের স্বপ্ন পানিতে তলিয়ে গেছে ছাতকে আবারো বন্যায় বিস্তীর্ণ এলাকা প্লাবিত «» সিলেটে ছাত্র মজলিসের বিক্ষোভ সমাবেশে অনতিবিলম্বে দোষীদের শাস্থি নিশ্চিত করতে হবে- আফজাল হোসাইন কামিল «» এমসি ছাত্রাবাসে তরুণীকে গণধর্ষণ, ৯ জনের বিরুদ্ধে থানায় মামলা «» ধর্ষণের মামলা গ্রাম্য বিচার সালিশির মাধ্যমে ধামাচাপা দেওয়ার চেষ্টা!




বিশ্বনাথে পর্ণোগ্রাফি মামলায় স্বামী-ভাসুর গ্রেফতার!

বিশ্বনাথ প্রতিনিধি :: সিলেটের বিশ্বনাথে ডির্ভোসের পর আমেরিকা প্রবাসী স্ত্রীর ছবি ও ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল করায় পর্ণোগ্রাফি মামলায় স্বামী ও তার বড় ভাইকে গ্রেফতার করেছে থানা পুলিশ। তারা হচ্ছে, উপজেলার দৌলতপুর ইউনিয়নের চরচন্ডি গ্রামের হাজী ইদ্রিছ আলীর পুত্র নুরুজ্জামান মিনার (৩২) ও তার বড় ভাই আনহার আলী (৪২)।
শনিবার রাতে উপজেলা সদরের পৃথক স্থান থেকে তাদেরকে গ্রেফতার করা হয়। শনিবার গ্রেফতারকৃত দুই আসামিসহ ৫জনের বিরুদ্ধে থানায় ওই মামলাটি দায়ের করেন বিশ্বনাথ সদর ইউনিয়নের মশুলা (মজলিশ ভোগশাইল) গ্রামের আলতাব আলীর পুত্র আলকাছ আলী, (মামলা নং-১৪)।
মামলা সূত্রে জানা গেছে, ২০১৪ সালের ২৮ ডিসেম্বর প্রেমের সম্পর্কে আসামি নুরুজ্জামান মিনারের সাথে নোটারি পাবলিকের মাধ্যমে তার আমেরিকা প্রবাসী বোনের বিয়ে হয়। পরবর্তিতে উভয় পরিবারের লোকজন তাদের বিয়ে মেনে নিয়ে ১৮সালের ১১ এপ্রিল সামাজিকভাবে ২৫ লাখ টাকা কাবিননামার মাধ্যমে পুনরায় আনুষ্ঠানিকতা করা হয়। অবশেষে একই সালের ১৫ মে তার বোন আমেরিকা চলে যান। এরপর থেকে তার বোনকে বিভিন্ন সময় টাকার জন্য চাপ সৃষ্টি করে স্বামী নুরুজ্জামান মিনার। দেশে থাকতেও টাকার জন্য অশুভ আচরণ করতো স্বামী। এর পূর্বে কৌশলে মোবাইল ফোনে স্বামী স্ত্রীর দাম্পত্য জীবনের বিভিন্ন ধরণের ভিডিও আর ছবি ধারণ করে রাখে স্বামী নুরুজ্জামান মিনার। টাকা না দেয়ায় এসকল গোপন ছবি আর ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ছড়িয়ে দেয়ার হুমকি দেয়।
আর এই হুমকির পরিপ্রেক্ষিতে ১৯ সালের ৬ডিসেম্বর তার আমেরিকা প্রবাসী বোন স্বামী নুরুজ্জামান মিনারকে ডিভোর্স দেয়। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে স্বামী ওই ছবি আর ভিডিওগুলো বিভিন্ন সময়ে বিভিন্ন ফেসবুকের ফেইক আইডির মাধ্যমে ছড়িয়ে দেয়।
এঘটনায় আলকাছ আলী বাদি হয়ে থানায় ওই মামলাটি দায়ের করেন। মামলা দায়েরের পর তারা দুই সহোদরকে গ্রেফতার করে পুলিশ।
রোববার সকালে আনহার আলীকে কোর্টে প্রেরণ করা হলেও নুরুজ্জামান মিনারকে অসুস্থ্যতার জন্য সিলেট ওসমানী হাসপতালে ভর্তি করা হয়েছে বলে জানান মামলার তদন্তকারি কর্মকর্তা এসআই নুর হোসেন জানান।

এখানে ক্লিক করে শেয়ার করুণ