jagannathpurpotrika-latest news

আজ, , ১০ই জিলক্বদ, ১৪৪২ হিজরী

সংবাদ শিরোনাম :




হার দিয়ে সিরিজ শুরু করলো বাংলাদেশ

ডেস্ক রিপোর্ট :: স্বাগতিক নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে তিন ম্যাচ ওয়ানডে সিরিজের প্রথম ম্যাচটা সুখকর হলো না টাইগারদের জন্য। তিন ম্যাচ সিরিজের প্রথম ওয়ানডেতে ৮ উইকেটের বিশাল ব্যবধানে হেরেছে বাংলাদেশ। ৪১ দশমিক ৫ ওভারে ১৩১ রানেই গুটিয়ে যায় টাইগারদের ইনিংস। টাইগারদের দেওয়া ১৩২ রানের টার্গেট অনায়াসেই পার করেছে স্বাগতিকরা। আট উইকেট হাতে এবং ১৭২ বল বাকি রেখেই ম্যাচ নিজেদের করেছে নিউজিল্যান্ড।
ডানেডিনে টসে হেরে প্রথমে ব্যাট করতে নামে টাইগাররা। উদ্বোধনী জুটিতে ব্যাট করতে নেমে ১৫ বল খেলেই আউট হন অধিনায়ক তামিম ইকবাল। কিউই পেসার ট্রেন্ট বোল্টের বলে লেগ বিফোরের ফাঁদে কাটা পড়ার আগে নিজের নামের পাশে ১৩ রান যোগ করেই বিদায় নেন তামিম। এরপর ব্যর্থ সৌম্য সরকারও। রানের খাতা খোলার আগেই বোল্টের ২য় শিকার তিনি। পারেননি লিটন দাসও। ৩৬ বলে খেলে ১৯ রান করে নিশামের বলে বিদায় এই মারকুটে ওপেনারের।
টপ অর্ডারের ব্যর্থতার পর মিডল অর্ডারেও অনেকটা একই চিত্র। মিস্টার ডিপেন্ডেবল মুশফিকুরও ফ্লপ এদিন। নিশামের বলে ফেরার আগে করেন ২৩ রান। মোহাম্মদ মিথুনের বিদায় মাত্র ৯ রানে। দলীয় ৭২ রানেই নেই পাঁচ উইকেট। দলের ৬ষ্ঠ উইকেটের পতন ঘটে কিছুক্ষণ পরেই। মাত্র ১ রান করেই মিরাজের ড্রেসিং রুমে ফেরার দৃশ্য। এরপর ট্যালেন্ডারদের কাছ থেকেও আসেনি কোন বলার মত ইনিংস। মেহেদি হাসান ফিরে যান ১০ রান করে। মাঝখানে একটু ধরে খেলার চেষ্টা করেও আউট হন এদিন দলের হয়ে সর্বোচ্চ ২৭ রান করা মাহমুদুল্লাহ।
টাইগারদের স্কোর ততক্ষণে অবশ্য একশো পার হয়ে গেছে। ১২৫ রানে আট উইকেটের পতন থেকে শেষ দুই উইকেটে যোগ হয় মাত্র ৬ রান। তাসকিন ১০ রান ও হাসান মাহমুদ ১ রান করে আউট হন। দু’জনই বোল্টের শিকারে পরিণত হন। সব মিলিয়ে ৪১.৫ ওভারে বাংলাদেশের সংগ্রহ দাঁড়ায় ১০ উইকেট হারিয়ে ১৩১ রান।
কিউইদের পক্ষে বোল্ট ৪টি, নিশাম ২টি, স্যান্টনার ২টি ও ম্যাট হেনরি ১ উইকেট দখল করেন।
এরপর ১৩২ রান তাড়া করে ব্যাট করতে নিউজিল্যান্ডের উদ্বোধনী জুটিতে আসে ৫৪ রান। টি-টোয়েন্টি মেজাজে ঝড়ো ব্যাটিংয়ে ১৯ বলে ৩৮ রান করে আউট হন মার্টিন গাপটিল। তাকে উইকেটের পেছনে তার ক্যাচটি ধরেন মুশফিকুর রহিম। আর উইকেটটি পকেটে পুরেন তাসকিন আহমেদ।
এরপর ধীরে দেখেশুনে নিশ্চিন্তে ব্যাট করতে থাকেন হেনরি নিকোলস ও ওডিআই ডেব্যু হওয়া ডেভন কনওয়ে। দ্বিতীয় উইকেট জুটিতে এ দু’জন জড়ো করেন ৬৫ রান। তবে খেলা শেষ হওয়ার কিছুটা আগে উইকেট হারান কনওয়ে। হাসান মাহমুদের বলে মাহমুদুল্লাহের হাতে ক্যাচ দিয়ে আউট হওয়ার আগে করেন ৫২ বলে ২৭ রান। ম্যাচে বাংলাদেশের বোলারদের ওই দুইটাই অর্জন। এরপর আর কোন উইকেটের পতন ঘটাতে পারেনি মুস্তাফিজরা।
১৭২ বল বাকি থাকতেই মাত্র ২১.২ ওভারেই ১৩২ রান করে কিউইরা। হেনরি নিকোলস ৪৯ রানে ও উইল ইয়ং ১১ রানে অপরাজিত থাকেন।
আগামী ২৩ মার্চ (মঙ্গলবার) সিরিজের দ্বিতীয় ওয়ানডেতে মুখোমুখি হবে দু’দল।

এখানে ক্লিক করে শেয়ার করুণ