jagannathpurpotrika-latest news

আজ, , ২৯শে শাবান, ১৪৪২ হিজরী

সংবাদ শিরোনাম :




সিলেটে ফেদায়ে মিল্লাত (রহঃ) এর অভ্যর্থনা, যে স্মৃতি আজ ও হৃদয়ে নাড়া দেয়

শাহ মমশাদ আহমদ

 

আম্মু সাতসকালে গোসল করিয়ে দিতেন, আজ কিন্তু ঈদের দিন নয়, ফেদায়ে মিল্লাত আস’আদ আল মাদানি রহ সিলেট আসছেন, শেরপুর জামেয়া আওরঙ্গপুর থেকে ভোরেই গাড়ী ছুটবে সিলেট বিমানবন্দরের দিকে, ভালো জামা পরে খুব তাড়াতাড়ি প্রস্তুত হয়ে যেতাম, যদি গাড়ি মিস হয়ে যায় এ ভয়ে। আমার ওয়ালেদে মুহতারাম ফাজিলে দেওবন্দ হযরত মাওলানা আব্দুল কাইয়ুম রহঃ। গুরুগম্ভীর মানুষটির মুখে ও এ দিন দেখা যেত হাসির ঝিলিক, মুর্শিদের সাক্ষাত লাভে ব্যাকুল মন আজ প্রশান্তি পাবে। সকাল ৮ টার দিকে শেরপুর থেকে যাত্রা করে সিলেট আসতে আসতে হয়ে যেত বিশাল গাড়ী বহর, প্রতি গাড়িতে বাজত তারানায়ে দেওবন্দ, সুমধুর কন্ঠে শোনা যেত ফেদায়ে মিল্লাতের শানে উর্দু নাশিদ ফেদায়ে মিল্লাত আ গাঁয়ি, সিলেট বিমানবন্দর এসে মনে হত এ যেন শুভ্রতার সারি, চতুর্দিকে সাদা পাঞ্জাবি পড়া আলেম উলামা,হাজারো চোখ তাকিয়ে থাকত আকাশ পানে বিমান অবতরনের অপেক্ষায়। ফেদায়ে মিল্লাতের সিলেট পদার্পনের সাথে সাথেই শুরু হত গগন বিদারী শ্লোগান, বিশাল গাড়ি বহরের ইসতেকবাল দিয়ে হযরতকে নিয়ে আসা হত সিলেট শহরে। সিলেট অঞ্চলে ফেদায়ে মিল্লাতের আগমন ছিল দেওবন্দী চেতনার বিস্ফোরণ, আধ্যাত্মিকতার জাগরণ, দেওবন্দী ঘরানার মান অভিমান ভুলে এক হওয়ার মহাসম্মিলন। অভ্যর্থনার সার্বিক নেতৃত্ব প্রদান করতেন ঈমামে মাদানি শায়খুল মাশায়েখ হযরত শায়খে কৌড়িয়া রহঃ,হযরতের প্রোগ্রাম বন্টন হত অন্যান্য খোলাফায়ে মাদানী ও মুরব্বিদের পরামর্শের ভিত্তিতে, সিলেট বিভাগ জুড়ে থাকত অনুষ্ঠান সুচী, বৃহত্তর সিলেট হয়ে যেত মাদানীময়।

 

আজ ও মাদানী পরিবারের রত্নগর্ভ জগতখ্যাত আলেম ও মনিষীরা শায়খুল ইসলামের স্মৃতি ধন্য এ ভুমির টানে সিলেট আসেন, কিন্তু সে জৌলুশ নেই, সিলেট বাসীর হৃদয়ে নাড়া দেয়ার জন্য হযরত শায়খে কোড়িয়ার মত একনিষ্ঠ নেতৃত্ব নেই। হারানো ঐতিহ্য ফিরিয়ে আনতে প্রয়োজন সমন্বিত ফিকির ও উদ্যোগ, মান অভিমান ভুলে দেওবন্দী চেতনায় সুদৃঢ় ঐক্য গড়ে তোলা আজ সময়ের দাবী। আল্লাহ আমাদের তাওফিক দিন। লেখক: মুহাদ্দিস ও কলামিস্ট, সিলেট।

এখানে ক্লিক করে শেয়ার করুণ